মজুররত্ন

মাথুর তার মনে যত না জায়গা করতে পেরেছিল তার থেকে অনেক বেশি জায়গা করে নিয়েছিল মজুররত্ন পুরষ্কারের লোভনীয় হাতছানি । ঝুমি তাই পণ করেছিল সে মজুররত্ন হবে। মন দিয়ে কাজ করত ঝুমি। কামিনরা খাদানে নামে না। তারা সাধারণত ওপরে পাথর ভাঙার কাজ করে। ডিনামাইট দিয়ে পাথর ফাটানো হলে অনেক পাথরের টুকরো দূর দূর ছড়িয়ে যায়। সেগুলো বয়ে আনা এনে ক্র্যাশারে দেওয়া । ক্র্যাশার থেকে চালুনি ছেঁকে ছেঁকে নানা সাইজের পাথর বার হয়। সেগুলোকে এক জায়গায় জড়ো করা বেলচা করে পাথর তুলে ঝুড়ি ভরতি পাথর লরিকে লরি ভরতি করা। কিন্তু ঝুমিয়া নামতো খাদানে । মাথুর পছন্দ করত না। অশান্তি লাগত। ঘরে ফিরে চিৎকার করত –

– হ্যাঁ রে তু কিমন বেহায়া মিয়াছেলে বটে? খাদানের পেট ভরতি মরদলোক ছিক ছিক করে, উঁয়াদের সুঙ্গে গতর না শুঁকে কাম করতি পারিস লাই?

ঝুমিয়া মুখ বুজে থাকত। কারণ  সে তখন মনে মনে একটাই স্বপ্ন দেখত

-সে মজুররত্ন হয়েছে।

 

৳ 234

There are no reviews yet.

Be the first to review “মজুররত্ন”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Updating…
  • No products in the cart.
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial